Untitled Document
** সুন্দরবনে হারিয়ে যাওয়া কিশোরকে উদ্ধার ** হাত ধোয়ার কর্মসূচি না টাকার শ্রাদ্ধ ** যমুনায় নৌকাডুবি: আরও ৫ জনের লাশ উদ্ধার ** ঝুঁকি নিয়ে রাজধানীতে ফিরতে শুরু করেছে মানুষ ** দিনাজপুরে সরকার সম্পর্কে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে মিথ্যা মন্তব্য ও গুজব ছড়ানো: যুবক গ্রেপ্তার ** মেয়ের সামনে মাকে গণধর্ষণ : গ্রেপ্তার ১ ** ঝুঁকিপূর্ণ নারায়নগঞ্জে খুলেছে ১৯১টি কারখানা ** গাজীপুরে ‘বন্দুকযুদ্ধে মাদক ব্যবসায়ী নিহত ** বেঁচে আছেন’ কিম জং উন ** ভুলের জন্য আমি ক্ষমা প্রার্থী -ইরিন রিয়া,সভাপতি,যুব মহিলালীগ,খিলক্ষেত থানা ** কিশোরগঞ্জে মাছ চুরিকে কেন্দ্র করে নিহত এক ** ১০ দিনের জন্য অবরুদ্ধ দেশ ** ফরিদপুরের চরভদ্রাসনে ছুরির আঘাতে এক যুবক নিহত ** খুলনায় জ্বর ও শ্বাসকষ্টে একজনের মৃত্যু ** কানাইঘাটে দোকান বন্ধ করতে বলায় পুলিশকে ধাওয়া
Mar 252013
 

সাগর-রুনি হত্যা: বিচার দাবিতে সাংবাদিক সমাবেশ চলছে

সাংবাদিক দম্পতি সাগর-রুনি হত্যার বিচার দাবিতে সাংবাদিকদের সমাবেশ সোমবার সকালে শুরু হওয়ার পর দুপুর পর্যন্ত অব্যাহত রয়েছে।

সেগুনবাগিচার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি (ডিআরইউ) প্রাঙ্গণে এ সমাবেশ চলছে।

ডিআরইউ নেতারা জানিয়েছেন, সাগর-রুনি হত্যার এক বছর পার হলেও এই সাংবাদিক দম্পতি হত্যার বিচারের কার্যক্রমে কোনো ধরনের অগ্রগতি হয়নি। তাই, এই বিচার প্রক্রিয়া আরও দ্রুত শেষ করার দাবিতে আজকের এই সমাবেশ।

তারা জানান, চলমান আন্দোলনকে আরও এগিয়ে নিতে এ কর্মসূচিতে সবারই সক্রিয় অংশগ্রহণ প্রয়োজন।

এর আগে শনিবার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাধারণ সম্পাদক ইলিয়াস খান স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সদস্য ও সব সাংবাদিক ইউনিয়নের সদস্যদের উপস্থিত থাকতে আহ্বান জানানো হয়।

ডিআরইউ  সেক্রেটারি ইলিয়াস খান বাংলানিউজকে বলেন, “সাগর-রুনি হত্যাকাণ্ডের পর থেকেই প্রকৃত খুনিদের গ্রেফতার ও বিচারের দাবিতে সাংবাদিকরা আন্দোলন করে আসছেন। সেই আন্দোলনের অংশ হিসেবে আমরা বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন (বিএফইউজে), ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়ন (ডিইউজে) এবং জাতীয় প্রেসক্লাবের সঙ্গে ঐক্যবদ্ধ আন্দোলন চালিয়ে আসছি।”

তিনি বলেন, “ডিআরইউ বর্তমান কার্যনির্বাহী কমিটি দায়িত্ব গ্রহণের পর প্রথম বৈঠকেই সাগর-রুনি হত্যার বিচারের দাবিতে চলমান আন্দোলনে দায়িত্বশীল ও সক্রিয় ভূমিকা পালনের পাশাপাশি কোনো সংগঠন পিছু হটলেও ডিআরইউ রাজপথে সোচ্চার থেকে এ নির্মম হত্যাকাণ্ডের বিচার চেয়ে আসবে।”

তিনি বলেন, “এই অঙ্গীকারের জায়গা থেকে সহযোদ্ধা সাগর-রুনি হত্যাকারীদের গ্রেফতার ও বিচারের দাবিতে আজকের এই সমাবেশ।”

উল্লেখ্য, ২০১২ সালের ১১ ফেব্রুয়ারি মাছরাঙ্গা টেলিভিশনের বার্তা সম্পাদক সাগর সরওয়ার এবং এটিএন বাংলার সিনিয়র  রিপোর্টার মেহেরুন রুনি দম্পতি রাজধানীর নিজ বাসায় নৃশংস হত্যাকাণ্ডের শিকার হন। তার পর সাংবাদিকরা আন্দোলন করে আসলেও হত্যাকারীরা ধরাছোঁয়ার বাইরেই থেকে যায়।

যদিও তৎকালীন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যাডভোকেট সাহারা খাতুন ২৪ ঘণ্টার মধ্যে হত্যাকারীদের গ্রেফতারের আশ্বাস দিলেও হত্যাকারীকে ধরতে পারেনি সরকার।

এর পর একসময় বলা হয়, যে কোনো সময় হত্যাকারীদের সবার সামনে হাজির করা হবে। পরবর্তীতে র‌্যাব নিহতের লাশ উত্তোলন করলেও আজও হত্যাকারীদের ধরতে পারেনি।

কিছুদিন আগে বর্তমান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ড. মহীউদ্দীন খান আলমগীর হত্যার মোটিভ জানা গেছে উল্লেখ করলেও সাংবাদিকদের তোপের মুখে পড়ে তিনি চুপ মেরে যান।

এদিকে, সাংবাদিকত দম্পতি হত্যার বিচারের ঘটনাকে কেন্দ্র করে আওয়ামী ও বিএনপি-জামায়াতপন্থি সাংবাদিকদের সংগঠন ঐক্যবদ্ধভাবে আন্দোলন করে আসছিল।

এর আগে এই দম্পতির বিচারের দাবিতে ঐক্যবদ্ধ আন্দোলন করে আসছিল বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন (বিএফইউজে), ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়ন (ডিইউজে), জাতীয় প্রেসক্লাব ও ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি।

কিন্তু শাহবাগের আন্দোলনের সঙ্গে ঐক্যমতে না পৌঁছাতে পেরে আবারও বিভক্ত হয়ে পড়ে আওয়ামী লীগ ও বিএনপিপন্থি দুটি সংগঠন বিএফইউজে ও ডিইউজে।

স্থগিত করা হয় পূর্বঘোষিত ১১ মার্চের ২৪ ঘণ্টা ধর্মঘট। কিন্তু, এই দিন জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে বিএনপি-জামায়াতপন্থি দুটি ইউনিয়ন সাংবাদিকরা সমাবেশ করেন।

সাগর-রুনির বিচারের দাবিতে আন্দোলরত বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন (বিএফইউজে), ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়ন (ডিইউজে) এই দুটি সংগঠন যখন  রাজনৈতিক ইস্যুতে বিভক্ত, তখন এই বিচারের দাবিতে একাই আন্দোলনে নামলো ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি। সাংবাদিকদের এই আন্দোলনে যোগ দিয়েছেন নিহত রুনির মা সালেহা বেগমও।

 Posted by at 7:36 am

 Leave a Reply

(required)

(required)

You may use these HTML tags and attributes: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <strike> <strong>