জাতীয়

প্রচার-প্রচারণা শেষ, ভোট উৎসবের প্রতীক্ষায় দেশ

প্রচার-প্রচারণা শেষ, ভোট উৎসবের প্রতীক্ষায় দেশ

আর মাত্র কয়েক ঘণ্টা বাদেই সারাদেশে শুরু হবে ভোট উৎসব। এরইমধ্যে একাদশ জাতীয় সংসব নির্বাচনকে ঘিরে প্রার্থীদের প্রচার-প্রচারণা শেষ হয়েছে শুক্রবার (২৮ ডিসেম্বর) সকাল ৭ টা ৫৯ মিনিটে। টানা ১৯ দিন বিরামহীনভাবে ভোটারদের দ্বারে দ্বারে চষে বেরিয়েছেন প্রার্থীরা। যদিও শুরু থেকে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থীরা প্রচারণা চালাতে পারছেন না বলে অভিযোগ করে আসছিলেন। অন্যদিকে মহা ধুম-ধামে ঢাক, ঢোল পিটিয়ে প্রচারণা চালিয়েছেন মহাজোটের প্রার্থীরা। গত ১০ ডিসেম্বর থেকে একাদশ সংসদ নির্বাচনের প্রচার-প্রচারণা শুরু হয়। প্রতীক বরাদ্দের পর থেকে শুরু হয় প্রচারণা উৎসব। এবারের নির্বাচনে মূলত দুটো জোটের মধ্যে প্রতিদ্বন্দ্বীতা হচ্ছে। গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন মহাজোট। দুই জোটের প্রার্থীর বাইরে আরো কিছু দল নিজ প্রতীকে নির্বাচন করছেন। এছাড়া স্বতন্ত্র প্রার
কেন্দ্র পাহারা দিয়ে শান্তিপূর্ণ ভোট নিশ্চিত করা হবে: ওবায়দুল কাদের

কেন্দ্র পাহারা দিয়ে শান্তিপূর্ণ ভোট নিশ্চিত করা হবে: ওবায়দুল কাদের

মাসদু রহমান (ডেস্ক রিপোর্ট): আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, এবার নির্বাচনে ভোট বিপ্লব হবে দুর্নীতি ও সাম্প্রদায়িক অপশক্তির বিরুদ্ধে। শুক্রবার (২৮ ডিসেম্বর) সকালে ফেনীতে তিনি বলেন, স্বাধীনতার পক্ষে গণজোয়ার তৈরি হয়েছে। ভোটের দিন কেন্দ্র পাহারা দিয়ে শান্তিপূর্ণ ভোট নিশ্চিত করা হবে।
সরকারের ধারাবাহিকতা রাখতে আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন জোটকে আবারো বিজয়ী করার আহ্বান

সরকারের ধারাবাহিকতা রাখতে আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন জোটকে আবারো বিজয়ী করার আহ্বান

মাসুদ রাহমান : সোমবার ঢাকার কামরাঙ্গীরচর হাসপাতাল মাঠে এক জনসভায় আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা বলেন, “আমরা সার্বিকভাবে উন্নয়নের মহাপরিকল্পনা হাতে নিয়েছি। বাংলাদেশ আজকে উন্নয়নের মহাসড়কে। এর ধারাবাহিকতা রাখা একান্তভাবে প্রয়োজন। “তাই আমি আপনাদের কাছে অনুরোধ করব, আগামী নির্বাচন অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। অতীতে যারা ক্ষমতায় ছিল, বিএনপি-জামায়াত জোট, তারা জনগণের কল্যাণে কিছু দিতে পারে নাই। কিন্তু নিজেরা অর্থসম্পদের মালিক হয়েছে, বিদেশে অর্থ পাচার করেছে।” শেখ হাসিনা বলেন, “তারা এদেশের মানুষের ভাগ্য নিয়ে ছিনিমিনি খেলেছে, অগ্নিসন্ত্রাস করেছে, ২১ অগাস্ট গ্রেনেড হামলা করে মানুষ হত্যা করেছে।” ১৯৯১ সালে বিএনপি ক্ষমতায় আসার পর ঢাকার লালবাগে গুলি করে ছয়জনকে হত্যার ঘটনা মনে করিয়ে দিয়ে তিনি বলেন, “এইভাবে তারা সন্ত্রাস, দুর্নীতি, লুটপাট… এছাড়া আর কিছুই করতে পারে না। মানুষকে কিছু দিতে পারে না, শুধু নিতে পার
সেনাবাহিনী কোনো দলের নয়, বিতর্কিত করবেন না : কাদের

সেনাবাহিনী কোনো দলের নয়, বিতর্কিত করবেন না : কাদের

মনোয়ার হোসেন মুন্নাঃ আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, সেনাবাহিনী কোনো দলের না, সেনাবাহিনী কোনো জোটের না। কাজেই সেনাবাহিনীকে নিয়ে আজকে যারা উল্লসিত হচ্ছেন, উচ্ছ্বসিত হচ্ছেন তাদের বলে দিতে চাই সেনাবাহিনী কোনো দলের পক্ষে যাবে না। সেনাবাহিনী নিরপেক্ষ ভূমিকা পালন করবে। সোমবার (২৪ ডিসেম্বর) ফেনীর দাগণভূঞাঁয় আতাতুর্ক উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে মহাজোট মনোনীত লাঙল প্রতীকের প্রার্থী লে. জেনারেল (অব.) মাসুদ উদ্দিন চৌধুরীর সমর্থনে আয়োজিত জনসভায় তিনি একথা বলেন । কাদের বলেন, তারা শুধু কথা বলতে পারে, কাজ করতে পারে না। তারা বাঙালি জাতিকে কলা দেখিয়েছে, মুলা ঝুলিয়েছে, হাইকোর্ট দেখিয়েছে; কিন্তু দেশের উন্নতির জন্য কিছু করতে পারেনি। আওয়ামী লীগ সরকার বিগত ১০ বছরে ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ দিয়েছে। সামনে নির্বাচিত হলে ঘরে ঘরে গ্যাস সংযোগ দেবে।
মন্ত্রণালয় অধিদফতরের আওতাধীনে ৩ লাখ ১০ হাজার ৫১১টি পদ শুণ্য

মন্ত্রণালয় অধিদফতরের আওতাধীনে ৩ লাখ ১০ হাজার ৫১১টি পদ শুণ্য

সংসদ রিপোর্টার ॥ বর্তমানে দেশে মন্ত্রণালয় অধিদফতরের আওতাধীনে মোট ৩ লাখ ১০ হাজার ৫১১টি পদ শুণ্য রয়েছে। কোনো কোনো দফতর/সংস্থায় নিয়োগ কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন, কিছু কিছু পদ পদোন্নতির মাধ্যমে পূরণযোগ্য এবং কিছু কিছু পদ বাংলাদেশ সরকারি কর্ম কমিশনের মাধ্য পুরণযোগ্য বিধায় শূণ্য পদ পূরণের তারিখ নির্দিষ্টভাবে উল্লেখ করা সম্ভব নয়। স্পীকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে সোমবার জাতীয় সংসদ অধিবেশনে প্রশ্নোত্তর পর্বে সরকার দলীয় সংসদ সদস্য আবুল কালামের প্রশ্নের জবাবে এ তথ্য জানান জনপ্রশাসন মন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম। তাঁর অনুপস্থিতে সংসদে প্রশ্নের উত্তর দেন প্রতিমন্ত্রী ইসমাত আরা সাদেক। একই সংসদ সদস্য’র অপর প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী জানান, প্রজাতন্ত্রের অফিস আদালতে সাধারণ মানুষ যতে সঠিক সেবা পায় সেই বিষয়ে বর্তমান সরকার গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সিটিজেন চার্টার প্রস্তুত
৯ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ আমদানির পরিকল্পনা : প্রধানমন্ত্রী

৯ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ আমদানির পরিকল্পনা : প্রধানমন্ত্রী

গোয়েন্দা রিপোর্টে : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, বিদ্যুতের বাড়তি চাহিদা পূরণের জন্য ২০৪১ সাল নাগাদ বাংলাদেশ প্রতিবেশী দেশগুলো থেকে ৯ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ আমদানির পরিকল্পনা করেছে এবং আশা করছে এ প্রক্রিয়ায় ভারত তাঁদের পাশে থাকবে। প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা আঞ্চলিক সহযোগিতা কাঠামোর অধীনে ২০৪১ সালের মধ্যে প্রতিবেশি দেশগুলো থেকে ৯ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ আমদানির পরিকল্পনা করছি। আমি আশা করি, এই লক্ষ্য অর্জনে ভারত আমাদের পাশে থাকবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আজ বিকেলে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে একযোগে বিদ্যুৎ ও রেল য্গোযোগের তিনটি প্রকল্পের উদ্বোধনকালে প্রদত্ত ভাষণে একথা বলেন। প্রকল্পগুলো হচ্ছে- কুষ্টিয়ার ভেড়ামারায় নবনির্মিত ৫০০ মেগাওয়াট এইচভিডিসি (২য় ব্লক) প্রকল্পের নির্মাণ কাজ এবং বাংলাদেশ রেলওয়ের 'কুলাউড়া-শাহবাজপুর সেকশন পুনর্বাসন' ও 'আখাউড়া-
লাইসেন্স না থাকায় মোহাম্মদপুরের ১৪ হাসপাতাল ও ক্লিনিক বন্ধের নির্দেশ দিয়েছে হাইকোর্ট

লাইসেন্স না থাকায় মোহাম্মদপুরের ১৪ হাসপাতাল ও ক্লিনিক বন্ধের নির্দেশ দিয়েছে হাইকোর্ট

গোয়েন্দা রিপোর্টে :  লাইসেন্স না থাকায় মোহাম্মদপুরের ১৪ হাসপাতাল ও ক্লিনিক বন্ধের নির্দেশ দিয়েছে হাইকোর্ট। মঙ্গলবার এক রিট আবেদনের প্রেক্ষিতে বিচারপতি শেখ হাসান আরিফ ও বিচারপতি আহমেদ সোহেলের সমন্বয়ে গঠিত ডিভিশন বেঞ্চ এ আদেশ দেন। আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন মনজিল মোরসেদ।এসব হাসপাতালগুলো হলো- বিডিএম হসপিটাল, ক্রিসেট হাসপাতাল ও ডায়গনস্টিক কমপ্লেক্স, সেবিকা জেনারেল হাসপাতাল, জনসেবা নার্সিং হোম, লাইফ কেয়ার নার্সিং হোম, রয়্যাল মাল্টি স্পেশালিটি হসপিটাল, নবাব সিরাজউদ্দোলা মেন্টাল হসপিটাল, মনমিতা মেন্টাল হসপিটাল, প্লাজমা মেডিকেল সার্ভিস এন্ড ক্লিনিক, শেফা হসপিটাল, ইসলামিয়া মেন্টাল হসপিটাল, মক্কা মেডিয়ান জেনারেল হাসপাতাল, নিউ ওয়েল কেয়ার হসপিটাল ও বাংলাদেশ ট্রমা স্পেশালাইজড হসপিটাল।
৬০ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদনের মহাপরিকল্পনা নিয়েছি: প্রধানমন্ত্রী

৬০ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদনের মহাপরিকল্পনা নিয়েছি: প্রধানমন্ত্রী

 গোয়েন্দা রিপোর্টে :  ৬০ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদনের মহাপরিকল্পনা নিয়েছে সরকার ২০৪১ সালের মধ্যে এ লক্ষে আমরা কাজ করে যাচ্ছি। এ সময় তিনি সবাইকে বিদ্যুৎ অপচয় বন্ধের আহ্বান জানান। বৃহস্পতিবার দুপুরে রাজধানীর বসুন্ধরা ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সেন্টারে বিদ্যুৎ ও জ্বালানি সপ্তাহের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এ সব কথা বলেন। শেখ হাসিনা বলেন, ২০২১ সালের মধ্যে ২৪ হাজার মেগাওয়াট ২০৩০ সালের মধ্যে ৩০ হাজার মেগাওয়াট এবং ২০৪১ সালের মধ্যে ৬০- হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদনের মহাপরিকল্পনা নিয়ে আমরা যাত্রা শুরু করেছি। এরই মধ্যে আমরা প্রায় ২০ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদনের সক্ষমতা অর্জন করেছি। ২১০০ সাল পর্যন্ত বাংলাদেশকে আমরা কিভাবে গড়তে চাই সেই পরিকল্পনাও আমরা গ্রহণ করেছি। ইতোমধ্যে বিদ্যুৎ সঞ্চালন লাইন ৮ হাজার কিলোমিটার থেকে ১১ হাজার ১২২ সার্কিট কিলোমিটারে উন্নীত করেছি। বিতরণ লাইন ২ লাখ ৬০ হাজার কিলোমি
নির্বাচন ঠেকানোর মতো শক্তি কারও নেই : প্রধানমন্ত্রী

নির্বাচন ঠেকানোর মতো শক্তি কারও নেই : প্রধানমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, নির্বাচন ঠেকানোর মতো শক্তি কারও নেই। ষড়যন্ত্র আছে, ষড়যন্ত্র থাকবে, জনগণ সব ষড়যন্ত্র মোকাবেলা করবে। কারও হুমকিতে ঘরে বসে থাকলে চলবে না, কাজ করতে হবে। যতক্ষণ সাহস আছে ততক্ষণ মানুষের জন্য কাজ করে যাবো। রবিবার বিকেল ৪টায় গণভবনে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন। নেপালে বিমসটেক শীর্ষ সম্মেলনে অংশগ্রহণ বিষয়ে জানাতে এই সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। নির্বাচনকালীন সরকার বিষয়ে এক প্রশ্নের উত্তরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, নির্বাচিত সরকার ক্ষমতা থেকে সরে গেলে যারা একবার ক্ষমতায় বসে তারা আর ছাড়তে চায় না। মার্শাল ল, সামরিক শাসন ও কেয়ারটেকার সরকারের এমন অনেক উদাহরণ রয়েছে। তিনি বলেন, উচ্চ আদালত এ বিষয়ে একটি রায় দিয়েছে। যদি সরকার মনে করে, এ সুযোগ পরপর দু’বার নিতে পারে। তবে সংসদ সে সুযোগ নেয়নি। একটা সরকার থেকে আরেকটা সরকারে যাওয়ার যে সময় ওই সময়ে যেন কোনও ফাঁক না থাকে সেজন্
ভারতের রাজধানী নয়াদিল্লিতে  বিজিবি-বিএসএফ সীমান্ত সম্মেলন কাল

ভারতের রাজধানী নয়াদিল্লিতে বিজিবি-বিএসএফ সীমান্ত সম্মেলন কাল

গোয়েন্দা রিপোর্টে :  ভারতের রাজধানী নয়াদিল্লিতে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) এবং ভারতের বর্ডার সিকিউরিটি ফোর্স (বিএসএফ) এর মধ্যকার সীমান্ত সম্মেলন আগামীকাল শুরু হচ্ছে। মহাপরিচালক পর্যায়ে এই সীমান্ত সম্মেলন আগামী ৮ সেপ্টেম্বর শেষ হবে। আগামী ৭ সেপ্টেম্বর সম্মেলনের যৌথ আলোচনার দলিল (জয়েন্ট রেকর্ড অব ডিসকাশন্স-জেআরডি) স্বাক্ষরিত হবে। বিজিবি মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মো. সাফিনুল ইসলামের নেতৃত্বে ১৪ সদস্যের বাংলাদেশ প্রতিনিধিদল সম্মেলনে অংশ গ্রহণ করবেন। বাংলাদেশ প্রতিনিধিদলে বিজিবির উর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ ছাড়াও প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাগণ প্রতিনিধিত্ব করবেন। অপরদিকে ভারতের বিএসএফ মহাপরিচালক শ্রী কে কে শর্মার নেতৃত্বে ২০ সদস্যের ভারতীয় প্রতিনিধিদল উক্ত সম্মেলনে অংশগ্রহণ করবেন।